test
Monday, May 27, 2024
বাড়িSliderশেখ হাসিনা একটি পথপ্রদর্শক নক্ষত্র

শেখ হাসিনা একটি পথপ্রদর্শক নক্ষত্র

ড. চিন্ময় গুহ

২০১৭ সালের পহেলা ফেব্রুয়ারিতে একুশের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মঞ্চে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে যখন আমার সাক্ষাৎ হয়, তখন আমি অভিভূত হয়েছিলাম তার বিনয় এবং নম্রতা দেখে, যা বিশ্বের বেশিরভাগ নেতাদের মধ্যে বিশেষভাবেই অনুপস্থিত।
এটিই তো অবশ্যম্ভাবী ছিল, কারণ তিনি বঙ্গবন্ধুর কন্যা। আমার উদ্বোধনী বক্তৃতার জন্য অভিনন্দন জানাতে তিনি ধীরে এগিয়ে এলে, তখন উত্তরে আমি বলেছিলাম তিনি যে অভিনন্দনযোগ্য কাজ করেছেন, আমরা তার অত্যন্ত প্রশংসা করি। তার উত্তরও ছিল সরল এবং অকপট : ‘না অনেক কাজ বাকি’ (না, এখনও অনেক কিছু করা বাকি)। তিনি তার কারাবন্দি সময়টাকে স্মরণ করিয়ে দিলেন। তার উদার সংকল্পের মধ্যে আমি তার চরিত্রের একটি অসাধারণ শক্তিমত্তা দেখতে পেলাম। আমি উপলব্ধি করলাম যে নিরাপদ হাতেই রয়েছে এখন বাংলাদেশ।
সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ যে অগ্রগতি করেছে, কম বললেও, অসাধারণ এবং বিশ্বজুড়েই সেটি স্বীকৃত। আমি বিশেষভাবে প্রশংসা করি মৌলবাদীদের বিরুদ্ধে তার কঠোর অবস্থানকে। বাংলাদেশের প্রগতিশীল শক্তির সর্বদা সতর্কাবস্থা, যারা সময়বিশেষে কঠোর পক্ষপাতশূন্যও হতে পারে, আমাদের গর্বিত করে। যে কোনো দেশের জন্য তারা সম্পদ। আমি আনন্দিত যে ২০০৯ সালে শেখ হাসিনাকে রবিঠাকুরের বিশ্বভারতী সর্বোচ্চ দেশিকোত্তম সম্মাননা প্রদান করেছে।
আমি উপলব্ধি করেছি যে বিশ্বের ১০০ জন শক্তিশালী নারীর মধ্যে তাকে গণ্য করা হয় এবং ইন্দিরা গান্ধী পুরস্কার এবং মাদার তেরেসা পুরস্কার, নারীর ক্ষমতায়ন ও মেয়েদের শিক্ষার প্রতি তার অঙ্গীকারের জন্য ইউনেস্কো শান্তি বৃক্ষ পুরস্কার এবং জলবায়ু পরিবর্তনে নেতৃত্বের জন্য জাতিসংঘের পরিবেশ পদক অর্জন আমাদের অনেকের কাছেই তাকে একটি উচ্চ মর্যাদার আসনে বসিয়েছে।
শেখ হাসিনার সঙ্গে আমার সংক্ষিপ্ত সাক্ষাতটি আমার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল, কারণ আমার মননে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ছাপ রয়ে গেছে। যখন মুক্তিযোদ্ধারা তাদের স্বপ্নের স্বাধীনতা যুদ্ধে লড়ছিল তখন আমার বয়স ছিল মাত্র ১২ বছর। সেই যুদ্ধে ভারতের ভূমিকা বিশ্বের নবীনতম জাতির গৌরবময় ইতিহাসের অংশ, যা সে কখনও ভোলেনি। যখন আমি জানতে পারলাম যে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র পরিচালিত হতো খোদ কলকাতা থেকে, তখন আমার ভেতরকার চাঞ্চল্যটি একবার কল্পনা করুন। আমার বাবা বরিশালের, মা পাবনার। আমরা হচ্ছি ভাগ্যবিড়ম্বিত সেসব লক্ষ লক্ষ মানুষের অংশ, যাদের আত্মাটা পড়ে রয়েছে বাংলাদেশে। নিজের শেকড়ের প্রতি ভালোবাসা যাদের কখনও মরে না।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের অভিন্ন ঐতিহ্যের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ, তার অনন্যসাধারণ কন্যা শেখ হাসিনাও তাই। উপমহাদেশের নিজের কল্যাণার্থেই তাকে প্রয়োজন। আমি আন্তরিকভাবে আশা করি যে গণতন্ত্র রক্ষার জন্য সুদীর্ঘ সময় ধরে তিনি নৌকার হাল ধরে থাকবেন। সামনে রয়েছে এখনও দীর্ঘ লড়াই।
পৃথিবীর জন্য তার লক্ষ্য আলোর অনুসন্ধান।

লেখক : কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি ভাষাবিদ এবং রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য। তিনি ভারতের অন্যতম খ্যাতিমান ফরাসি ভাষার প-িত, এজন্য ফ্রান্স সরকার কর্তৃক তিনবার ‘নাইট’ উপাধিতে ভূষিত।

আরও পড়ুন
spot_img

জনপ্রিয় সংবাদ

মন্তব্য