Sunday, February 5, 2023
spot_img
বাড়িSliderমানুষের ওপর নির্যাতন হলে সহ্য করব না

মানুষের ওপর নির্যাতন হলে সহ্য করব না

উত্তরণ প্রতিবেদন: গত ২৬ নভেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘আন্দোলনের নামে আবার মানুষ পুড়িয়ে মারা, বোমা মারা কিংবা গ্রেনেড দিয়ে ঐ ধরনের অত্যাচার-নির্যাতন করতে চাইলে একটাকেও ছাড় দেওয়া হবে না। আমাদের ওপর যে আঘাত করা হয়েছে, তা আমরা ভুলি নাই। আমরা সহ্য করেছি, এটাকে অনেকে দুর্বলতা বলে। এটা আমাদের দুর্বলতা না।’ ২৬ নভেম্বর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মহিলা আওয়ামী লীগের ষষ্ঠ জাতীয় ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শেখ হাসিনা আরও বলেন, ‘বাংলাদেশের জনগণ আওয়ামী লীগের সঙ্গে আছে। ঐ খুনিদের সঙ্গে নেই। আমরাই দেশের জনগণের কল্যাণে কাজ করি। কিন্তু বিএনপি কী করে? তারা ২০০১ সালে ক্ষমতায় এসে কত মেয়েকে নির্যাতন করেছে? বাংলাদেশের এমন কোনো জায়গা নেই যে, তারা অত্যাচার করেনি। পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী যেভাবে নির্যাতন করেছিল, বিএনপি-জামাত ক্ষমতায় এসে ঠিক একইভাবে অত্যাচার করেছিল। ছয় বছরের শিশু থেকে ৬০-৬৫ বছরের বৃদ্ধারাও তাদের পাশবিক নির্যাতন থেকে রেহাই পাননি। আমরা যখনই মানুষের কাছে ছুটে গেছি; তারা গোপনে বলেছে, মা আমাদের ওপরও অত্যাচার-নির্যাতন করেছে। ঠিক পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীদের মতো।’
বিএনপির কর্মসূচিতে সরকারের আপত্তি নেই জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আন্দোলন করেন, মিছিল করেন, মিটিং করেন, কোনো আপত্তি নেই। তবে, একজন মানুষের ওপরও আক্রমণ হলে, একটাকেও ছাড়ব না। আমাদের ওপর হামলা হয়েছে সহ্য করেছি। মানুষের ওপর হামলা হলে সহ্য করব না।’ তিনি বলেন, ‘দেশের মানুষ বিএনপির মতো অপরাধী দলকে আর সমর্থন করে না।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘নারীদের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে সরকার। গৃহহীনদের ঘরসহ বিভিন্ন প্রকল্প নেওয়া হয়েছে। আর বিএনপি ক্ষমতায় থাকতে তেমন কিছুই করেনি। বিএনপি-জামাতের সময় আওয়ামী লীগের ওপর নানা ধরনের অত্যাচার-নির্যাতন করা হয়েছে। সেগুলো তারা ভুলে যায় কীভাবে? তারা বিরোধী দলে থাকতেও আগুন দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মেরেছে। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় আইভি রহমান এবং মহিলা আওয়ামী লীগের চার নেত্রীসহ ২২ নেতাকর্মীকে আমরা হারিয়েছি। এত জঘন্য কাজ বিএনপি-জামাত করতে পারে যেটি কল্পনাও করা যায় না।’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘ইসলাম ধর্মই একমাত্র ধর্ম, যেখানে নারীদের সমান অধিকার দেওয়া হয়েছে। স্বামী ও বাবার সম্পদে নারীর অধিকার দিয়েছে ইসলাম। অথচ যারা ধর্মের নামে নারীদের ঘরে রেখে দিতে চায়, তারা তা জানে না।’ সম্মেলনে মায়েদের উদ্দেশ্যে শেখ হাসিনা বলেন, ছেলেমেয়ে যাতে নিজের মনের কথা মায়ের কাছে বলতে পারে, সেই পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। তাহলে তারা বিপথগামী হবে না। এক্ষেত্রে মায়ের বিরাট ভূমিকা আছে, সেটা যথাযথভাবে পালন করতে হবে।
সম্মেলনে বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের ষষ্ঠ ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে সভাপতি মেহের আফরোজ চুমকি এমপি এবং শবনম জাহান শিলা এমপিকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে।

আরও পড়ুন
spot_img

জনপ্রিয় সংবাদ

মন্তব্য