Friday, February 23, 2024

গ্রাম-নগরের বিচিত্র সংবাদ

ফারুক শাহ

কুকুর-বিড়ালের আবাসিক হোটেল
কুকুর আর বিড়ালের জন্য আবাসিক হোটেল! ধারণাটা অপরিচিত হলেও এবার খোদ ঢাকার মিরপুরে যাত্রা শুরু হয়েছে এমন একটি হোটেলের। নাম ফাঁড়িঘর। ৫০০ থেকে ১৫০০ টাকার মাঝে রাখা যাবে পোষা কুকুর ও বিড়াল। থাকছে পার্লার, মিউজিক এবং ক্যাফের ব্যবস্থা। প্রতিটি কুকুরের ঘরের দৈর্ঘ্য ৯ ফুট আর পাঁচ ফুট প্রস্থ। বিছানা, বালিশ তো আছে; কিন্তু প্রাকৃতিক কাজ? সেটিরও আছে বিশেষ ব্যবস্থা। বিড়ালের জন্যও ব্যবস্থা আছে। প্রতিটি বিড়ালের জন্য এখানে থাকছে ১৬ বর্গফুটের আলাদা কেবিন। বিশেষ আদর-আপ্যায়নের সঙ্গে এখানে থাকবে ক্যাট ট্রি, কুশন এবং লিটারের ব্যবস্থা।
ফাড়িঘরের স্থপতি রাকিবুল হক এমিল বলেন, আপনি একজন মানবসন্তানকে আত্মীয়ের কাছে রেখে বেড়াতে যেতে পারেন। কিন্তু চাইলেই একটি কুকুরকে আপনি আত্মীয়ের সাথে রেখে যেতে পারবেন না। সবাই প্রাণীর সাথে অভ্যস্ত নাও হতে পারে। নতুন পরিবেশে মানিয়ে নিতে সময় লাগে পোষা প্রাণীর। পোষ্যদের মানসিক অবসাদ দূর করতে আছে বিনোদনের ব্যবস্থা, সাউন্ড সিস্টেম, টেলিভিশন। থাকছে সার্বক্ষণিক চিকিৎসাসেবা। সব আয়োজন হোটেল কর্তৃপক্ষ করলেও খাবারটা দিতে হবে মুনিবকেই।

কবর থেকে মরদেহ তুলে ঘুমিয়েছিল কিশোর
শরীয়তপুরের গোসাইরহাট উপজেলায় পানিতে ডুবে মারা যাওয়া এক শিশুর মরদেহ দাফনের পর রাতেই কবর থেকে উধাও হয়ে যায়। অনেক খোঁজাখুঁজির পর তিন বছরের সেই শিশুর মরদেহ পাওয়া যায় এক কিশোর আত্মীয়ের ঘরে। সে স্বীকার করে, কবর খুঁড়ে মরদেহ তুলে এনে জামা-কাপড় পরিয়ে একসঙ্গে রাতে ঘুমিয়েছে সে। স্বজনেরা বলছেন, এই কিশোর মানসিক ভারসাম্যহীন। উপজেলার নাগেরপাড়া ইউনিয়নের পশ্চিম বড় কাচনা গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।
চড়ুই পাখির কিচিরমিচির শব্দে মুখরিত জংশন
বগুড়ার আদমদীঘির সান্তাহার জংশন স্টেশনে আর পৌর শহরের বটতলী এলাকায় কৃষ্ণচূড়া ও বটগাছগুলোই এখন পাখিদের নিরাপদ আবাস। প্রতিদিন সন্ধ্যা আর ভোরে পাখিদের কিচিরমিচির শব্দে মুখরিত হয়ে ওঠে এলাকা। সন্ধ্যা নামার সঙ্গে সঙ্গে কয়েক হাজার চড়ুই পাখিতে ভরে যায় গাছগুলো। এক গাছেই কয়েক হাজার পাখি আশ্রয় নিয়ে থাকে বলে পাখিদের কোলাহলে ভরে থাকে এলাকাটি। জানা যায়, হঠাৎ করেই কিছু পাখি এখানে আশ্রয় নিতে শুরু করে। লোকজন তাদের বিরক্ত না করায়, কিছুদিনের মধ্যে ওদের সংখ্যা দ্বিগুণ হয়ে যায়। ঝাঁক বেঁধে পাখিদের ওড়াউড়ির দৃশ্য আর কিচিরমিচির শব্দে মন ভরে যায়। ট্রেন যাত্রীদের পাশাপশি বহু মানুষ এসব চড়ুই পাখির ছবি তুলতে প্রায় প্রতিদিনই আসছেন স্টেশনের কৃষ্ণচূড়া গাছের নিচে। প্রতি বছর আগস্টের শুরুর দিকে চড়ুই পাখিগুলো এখানে আশ্রয় নেয়। চার-পাঁচ মাস থাকার পর আবার চলে যায়।

মাছের খামারে কুমির
শরীয়তপুরের গোসাইরহাট উপজেলায় মাছের খামার থেকে একটি কুমির উদ্ধার করেন জেলেরা। গত ১৪ নভেম্বর রাতে উপজেলার আলওয়ালপুর ইউনিয়নের গাইমারা এলাকার একটি খামারে জেলেদের পাতা ফাঁদে ধরা পড়ে কুমিরটি। সেটিকে খামারে শিকল ও দড়ি দিয়ে বেঁধে রাখা হয়। খবর পেয়ে ঢাকা থেকে ঘটনাস্থলে পৌঁছা বন্য প্রাণী সংরক্ষণ অধিদপ্তরের একটি দল।
জানা যায়, উপজেলার গাইমারা এলাকায় মাছের ৮টি খামার আছে। এর মধ্যে ৫০ বিঘা জমির ওপর খলিল কাজী নামের এক ব্যক্তির একটি খামার আছে। সেখানে মিঠাপানির কার্প জাতীয় মাছের চাষ করা হয়। ওই খামারে গত ১২ নভেম্বর কুমিরটি দেখা যায়। এরপর ১৪ নভেম্বর জেলেরা কুমিরটিকে ধরতে গর্তের মুখে ফাঁদ পাতেন। রাত সাড়ে ৮টার দিকে কুমিরটিকে শিকল ও দড়ি দিয়ে বেঁধে ফেলেন তারা। এরপর মাছের খামারের এক কোণে তা বেঁধে রাখা হয়।

আরও পড়ুন
spot_img

জনপ্রিয় সংবাদ

মন্তব্য