Sunday, February 5, 2023
spot_img
বাড়িSliderউত্তরণের এক যুগপূর্তি

উত্তরণের এক যুগপূর্তি

সম্পাদকের কথা: দেখতে দেখতে ‘উত্তরণ’ এক যুগ পেরিয়ে ত্রয়োদশ বর্ষে পা রাখল। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির মুখপত্র ‘মাসিক উত্তরণ’ ২০১০ সালের ২৫ ডিসেম্বর আত্মপ্রকাশ করেছিল। আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুপ্রেরণায়, প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে আনুষ্ঠানিকভাবে ‘উত্তরণ’ প্রকাশিত হয়েছিল। তিনিই প্রথম সংখ্যার মোড়ক উন্মোচন করেছিলেন। অতঃপর নিয়মিতভাবে ‘উত্তরণ’ প্রকাশিত হয়ে আসছে।
কয়েক বছর (২০১০-১৪) পত্রিকাটি ট্যাবলয়েড আকারে প্রকাশিত হতো। ২০১৪ সালের এপ্রিল থেকে এটি ম্যাগাজিন আকারে প্রকাশিত হচ্ছে। ‘উত্তরণ’-এর চলার পথ কুসুমাস্তীর্ণ ছিল না। অনেক চড়াই-উতরাই আমাদের পেরুতে হয়েছে। অনেকেই ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন, ‘উত্তরণ’ খুব বেশিদিন চলবে না। অনেকেরই অভিমত ছিল, অতীতেও বেশ ক’বার আওয়ামী লীগ, দৈনিক, সাপ্তাহিক ও পাক্ষিক পত্রিকা প্রকাশ করেছিল। কিন্তু সত্যি সত্যি সেগুলোর আয়ুষ্কাল খুব বেশিদিন ছিল না। ফলে উল্লিখিত আশঙ্কা একেবারে ভিত্তিহীন ছিল না। কিন্তু সুখের বিষয় একটানা ১২ বছর যাবত ‘উত্তরণ’ বিরতিহীনভাবে প্রকাশিত হচ্ছে।
ইউরোপে যখন উনিশ শতকে বিভিন্ন রাজনৈতিক মতাদর্শের অনুসারী সংবাদপত্র প্রকাশিত হতে শুরু করে, তখন সংবাদপত্র কেবল মত প্রচারের বাহন হিসেবেই সীমাবদ্ধ ছিল না। সংবাদপত্রকে, বিশেষ করে রাজনৈতিক দল বা মতাদর্শের অনুসারী সংবাদপত্রের ভূমিকা ছিল জনমত গঠন ও অসংগঠিত জনগণকে সংগঠিত করা। সে-জন্য সংবাদমাধ্যমকে বলা হতো Organizer of the Masses, সংবাদপত্রের এই ভূমিকা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পায়। সংবাদপত্র হয়ে ওঠে রাষ্ট্রের সমান্তরাল রাষ্ট্রের অনুষঙ্গ, জনমতের সর্বোত্তম হাতিয়ার। এ জন্য রাষ্ট্রবিজ্ঞানীরা সংবাদপত্রকে অভিহিত করেছেন Fourth State হিসেবে। ‘উত্তরণ’ গত দুই শতাব্দীর মানবজাতির এই অভিজ্ঞতাকে মনে রেখেই পথ চলতে চেষ্টা করেছে।
আওয়ামী লীগের মুখপত্র হলেও, ‘উত্তরণ’ দেশের গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে অগ্রসর করে নেওয়া, উন্নয়ন অভিযাত্রায় শামিল থেকে দেশবাসীকে সচেতন ও সংগঠিত করার জন্য চেষ্টা করেছে। রাজনৈতিক দল হিসেবে আওয়ামী লীগের দৃষ্টিভঙ্গি, সাফল্য, সীমাবদ্ধতা ও কর্মসূচিকে যেমন তুলে ধরার চেষ্টা করেছে, তেমনি সুশীল সমাজের দৃষ্টিভঙ্গি , তাদের মতামত ও পরামর্শকে ‘উত্তরণ’-এর পাতায় গুরুত্বের সাথে প্রকাশ করেছে। ‘উত্তরণ’ রাষ্ট্রক্ষমতায় অধিষ্ঠিত আওয়ামী লীগ সরকারের, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও জাতীয় সংসদের সিদ্ধান্ত, মতামত এবং কর্মকাণ্ডের বিবরণও যথাযথভাবে প্রকাশ করে আসছে। ‘উত্তরণ’ একইসঙ্গে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন ঘটনাবলি, ইস্যু সম্পর্কে ব্যাখ্যাসহ সংবাদ প্রবন্ধ/নিবন্ধও নিয়মিত প্রকাশ করে আসছে। বাংলাদেশের মতো অন্যদেশে কী ঘটছে সে-সম্পর্কেও ‘উত্তরণ’ চোখ বুজে থাকেনি।
‘উত্তরণ’ যাতে একঘেয়েমি দোষে দুষ্ট না-হয়, সে-জন্য রাজনীতি ছাড়াও কতগুলো নিয়মিত কলাম প্রকাশ করছে। আমরা চেষ্টা করছি, কৃষি, শিল্প, বাণিজ্য, অর্থনীতির পাশাপাশি ক্রীড়া, সংস্কৃতি, গল্প, কবিতা, এবং নানা বিষয়ে সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশ করতে। বর্তমানে ‘উত্তরণ’ দলীয় কর্মী/সমর্থক/বুদ্ধিজীবীদের কাছে আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে। এটা ‘উত্তরণ’-এর জন্য নিঃসন্দেহে শ্লাঘার বিষয়।
‘উত্তরণ’ নিয়মিত প্রকাশিত হতে পেরেছে পাঠকের পাশাপাশি আমাদের বিজ্ঞাপনদাতা ও শুভানুধ্যায়ীদের সহযোগিতার জন্য। ‘উত্তরণ’-এর এক যুগপূর্তির এই দিনে আমরা, ‘উত্তরণ’-এর প্রধান পৃষ্ঠপোষক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আমাদের বিজ্ঞাপনদাতা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, ব্যক্তি ও শুভানুধ্যায়ীদের কৃতজ্ঞতা ও প্রাণঢালা অভিনন্দন জানাচ্ছি।
যাদের শ্রম, ঘাম, মেধা ও ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ‘উত্তরণ’ দ্বাদশ বর্ষ পেরিয়ে ত্রয়োদশ বর্ষে পা রাখতে সক্ষম হলো, ‘উত্তরণ’-এর সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্যবৃন্দ, ‘উত্তরণ’-এর লেখক ও কন্ট্রিবিউটর এবং কর্মীদের জানাচ্ছি আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। আমরা আশা করছি, ‘উত্তরণ’-এর এই অগ্রযাত্রা যে কোনো পরিস্থিতিতে অব্যাহত থাকবে।

আরও পড়ুন
spot_img

জনপ্রিয় সংবাদ

মন্তব্য